বাংলাদেশ থেকে প্রতিবছর নানা প্রয়োজনে এবং অনেকেই কর্মের জন্য বিশ্বের বিভিন্ন দেশে পাড়ি জমিয়ে থাকে। বর্তমান সময়ে বাংলাদেশের প্রায় ১ কোটিট মানুষ বিশ্বের বিভিন্ন দেশে বসবাসরত অবস্থায় রয়েছে। সম্প্রতি সময়ে এই সকল প্রবাসীদের জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে এক বিশেষ দাবি জানালেন ব হুল আলোচিত ও জনপ্রিয় সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী ব্যারিস্টার সৈয়দ সায়েদুল হক সুমন।
সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকের লাইভে বিভিন্ন সামাজিক অসুবিধা-অসঙ্গতি তুলে ধরে আলোচনায় আসা সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী ব্যারিস্টার সৈয়দ সায়েদুল হক সুমন এবার প্রবাসীদের অভিযোগ নিষ্পত্তির জন্য পৃথক আদালত করার দাবি জানিয়েছেন।
শুক্রবার (০৪ ডিসেম্বর) সিলেটের পু/লি/শ সুপারের কার্যালয় থেকে দেয়া এক লাইভ ভিডিওতে প্রধানমন্ত্রীর কাছে প্রবাসীদের জন্য আলাদা আদালত করার জন্য প্রধানমন্ত্রীর কাছে দাবি জানান ব্যারিস্টার সুমন।
প্রস্তাবিত বিশেষ আদালতে শুধুমাত্র দেশের বাইরে অবস্থানকারী প্রবাসীদের অভিযোগের বিষয়গুলো নিষ্পত্তির জন্য বলেন তিনি।

লাইভ ভিডিওতে ব্যারিস্টার সুমন বলেন, ’প্রবাসীদের জন্য আলাদা আদালত চাই, আলাদা কোর্ট চাই। কারণ হলো তারাই সবচেয়ে বেশি রেমিটেন্স পাঠায় বাংলাদেশে। প্রবাসীদের অবদানের কথা কেউ অস্বীকার করেন না। সব রাজনৈতিক দলই প্রবাসীদের অবদানের কথা স্বীকার করেন। কিন্তু প্রবাসীরা সবচেয়ে বেশি হয়রানির শিকার হন বিমানবন্দরে। এরপরে প্রবাসীদের জায়গা জমি ও বিভিন্ন সমস্যা নিয়ে আদালতে যেতে হয়। পু/লি/শ চাইলেও আইনের কারণে তাদের সঠিকভাবে সহযোগিতা করতে পারেন না।’ তিনি আরও বলেন, ’প্রবাসীদের সমস্যা সমাধানের জন্য আলাদা সেল তৈরি করা হয়েছে। বলা হয়েছে প্রায়োরিটি দিয়ে তাদের সমস্যার সমাধান করা হবে। পু/লি/শ আইনগত কারণে প্রবাসীদের সেভাবে সেবা দিতে পারে না। তাই এখন সময়ের দাবি প্রবাসীদের জন্য একটি আলাদা আদালত গঠন করা।’

ভিডিওর একপর্যায়ে সিলেটের পু/লি/শ সুপার (এস/পি) প্রবাসীদের সেবাদানের ক্ষেত্রে বিভিন্ন অসঙ্গতি তুলে ধরেন। তিনিও পু/লি/শে/র পক্ষ থেকে প্রবাসীদের জন্য আলাদা আদালতের দাবি তোলেন। এ সময় ব্যারিস্টার সুমন বলেন, ’আমি মাননীয় পররাষ্ট্রমন্ত্রীরও দৃষ্টি আকর্ষণ করছি সিলেটসহ দেশের বিভিন্ন এলাকার প্রবাসীদের প্রতি কৃতজ্ঞতাস্বরূপ হলেও নতুন একটি সিস্টেমের মধ্যে দিয়ে তাদের সমস্যার সমাধান হোক।’

সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী ব্যারিস্টার সৈয়দ সায়েদুল হক সুমনের ব্যপক জনপ্রিয়তা রয়েছে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে। তিনি সমাজের নানা অনিয়ম সহ সমাজের বিভিন্ন বিষয় সামজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকের লাইভে তুলে ধরেন। তার করা এই লাইভ ভিডিওর মধ্যে দিয়েই দেশ জুড়ে আলোচনার শীর্ষে উঠে এসেছেন তিনি। এমনকি সম্প্রতি সময়ে তিনি বাংলাদেশের ক্ষমতাসীন রাজনৈতিক দলের সহযোগী সংগঠন যুবলীগের কমিটিতে বিশেষ পদ ও পেয়েছেন।